ইসলাম

মেয়েদের কসর নামাজ এর নিয়ম ও নিয়ত

মেয়েদের কসর নামাজ

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ ।আশা করি সবাই ভালো আছেন । আজকে আমরা আলোচনা করবো মেয়েদের কসর নামজ সম্পর্কে ।

আসলে কসর নামাজের বিধানে ছেলে ও মেয়ের জন্য কোন তফাৎ নাই ।কসর নামাজ পড়ার উপযুক্ত হওয়ার শর্ত হলো,

নিজ আবাস্থল থেকে৪৮ মাইল বা ৭৭.২৩ মাইল ‍দুরে, ১৫ দিন কম থাকার নিয়তে গেলে সে পুরুষ হোক, কিংবা মেয়ে হোক তার জন্য কসর নামাজ পড়তে হবে।

তবে এই দুরুত্বের ক্ষেত্রে আলেমদরে মধ্যে মতভেদ আছে । কেউ বলেছেন, ১৬ মাইল , কেউ বলেছেন ৪৮ মাইল , কেউ বলেছে ৫৪ মাইল । তবে ৪৮ মাইলের পক্ষেই বেশী মতামত পাওয়া যায় ।

এখন প্রশ্ন হলো হলো, মেয়েদের জন্য স্থায়ী নিবাস কোনটি ? বাবার বাড়ি ? নাকি স্বামীর বাড়ি ?

আমাদের আগে জানতে হবে এই প্রশ্নের উত্তর । তো চলুন জেনে নেই মেয়ের স্থায়ী ঠিকানা সম্পর্কে।

মেয়েদের কসর নামাজের বিধানঃ

ইসলামী শরীয়ত মতে, মেয়েদের জন্য স্থায়ী নিবাস হলো স্বামীর বাড়ি তথা তার শশুর বাড়ি । কোন বিবাহিত মেয়ে যদি স্বামীর বাড়ি থেকে বাবার বাড়ি যায় এবং ১৫ দিন এর কম সময় বাবার বাড়ি অবস্থান করেন তবে তিনি মুসাফির হিসে্বে গন্য হবেন ।  এবং তাকে  কসর নামাজ আদায় করতে হবে।

এই সময় তিনি মুসাফির হিসেবে গন্য হবেন । এবং তিনি চার রাকায়াত বিশিষ্ঠ নামাজ ২ রাকায়াত করে কসর করবেন ।

যোহর, আছর, মাগরীব, এই তিন ওয়াক্ত ব্যাতিতো কসর করা যাবে না ।

বাবার বাড়িতে ১৫ দিন এর বেশী থাকলেঃ

কোন বিবাহিত নারী যদি বাবার বাড়ি ১৫ দিন এর বেশী অবস্থান করে। তবে তাকে পুরো নামাজ পড়তে হবে।

চার রাকায়াত বিশিষ্ট নামাজে তিনি ৪ রাকায়াতই আদায় করবেন । কম করবেন না।

মেয়েদের কসর নামাজের নিয়মঃ

আমি আগেই বলেছি মেয়েদের কসর নামাজ আর ছেলেদের নামাজের আলাদা কোন নিয়ম নেই ।

কসর শব্দের অর্থ কীঃ

অর্থ কমানো বা কম করা । চার রকায়াত বিশিষ্ট নামাজ কে ২ রাকায়াত পড়াতে কসর বলে ।

 

পড়ুন- কসর নামাজের নিয়ম ও নিয়ত বাংলায় 

পড়ুন – স্বপ্নদোষ কী ? স্বপ্নদোষ থেকে বাচাঁর উপায় 

 

আজকের মতো এখানেই শেষ করছি সামনে আবার দেখা ভিন্ন কোন বিষয় নিয়ে ইনশাআল্লাহ ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.